রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৩:১৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
গাইবান্ধা জেলা শিল্পকলা একাডেমীর নির্বাচন সম্পন্ন গাইবান্ধায় যুব ইউনিয়নের জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ মিছিল প্রেসক্লাব গাইবান্ধার অভিষেক ও প্রীতিভোজ অনুষ্ঠিত গাইবান্ধায় পুলিশে নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশ খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি এবং চিকিৎসার দাবিতে বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত মহান রুশ বিপ্লব ও পার্টির ৪১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর ডাক মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে গাইবান্ধায় কমিউনিস্ট পার্টি বিক্ষোভ গোবিন্দগঞ্জ সড়কে সকালেই প্রাণগেল ৬ জনের

সাতদফা বাস্তাবায়ন চান সাঁওতাল-বাঙালিরা

গোবিন্দগঞ্জ প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২১
  • ৬৯
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাহেবগঞ্জ ইক্ষুখামারের বিরোধপূর্ণ তিন ফসলি জমিতে ইপিজেড নির্মাণের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় সাঁওতাল-বাঙালিরা। বৃহস্পতিবার বেলা ১২টা থেকে প্রায় দু’ঘন্টাব্যাপি ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের গোবিন্দগঞ্জ শহরের থানামোড়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা।
সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি পুনরুদ্ধার সংগ্রাম কমিটির আয়োজনে বার্নাবাস টুডুর সভাপতিত্বে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি পুনরুদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাফরুল ইসলাম প্রধান, কমিউনিস্ট পার্টি উপজেলা শাখার সভাপতি তাজুল ইসলাম, যুব ইউনিয়ন জেলা শাখার সভাপতি প্রতিভা সরকার ববি, বাংলাদেশ ভূমিহীন আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য লায়ন মো. ছামিউল আলম রাসু, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা ক্ষেতমজুর সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদুন্নবী মিলন, সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি পুনরুদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রাফায়েল হাসদা, প্রচার সম্পাদক আতাউর রহমান সাবু, কোষাধ্যক্ষ মি. গণেশ মুরমু, দপ্তর সম্পাদক ভবেন মার্ডি ও আদিবাসী নেত্রী রুমিলা কিসকু প্রমুখ। মানববন্ধন কর্মসূচি পরিচালনা করেন যুব ইউনিয়ন উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম মিজান।
এর আগে উপজেলার মাদারপুর, জয়পুরপাড়া, সাহেবগঞ্জ মেরী, চক রহিমাপুর, গোসাইপুরসহ বিভিন্ন এলাকার সহ¯্রাধিক নারী-পুরুষ প্রচÐ গরম ও রৌদ্র উপেক্ষা করে প্রায় ৮/৯ কিলোমিটার পথ পায়ে হেঁটে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ র‌্যালী নিয়ে গোবিন্দগঞ্জ শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে থানামোড় চারমাথায় মানববন্ধনে অংশ নেন।
বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, বাপ-দাদার এই জমি উদ্ধারে সাঁওতাল-বাঙালিরা দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছে। এরপর জমি উদ্ধারের স্বার্থে ২০১৩ সালে সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটি গঠন করে আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে ২০১৬ সালে জমি-জমা চাষাবাদসহ বসতবাড়ী নির্মাণ করে বসবাস করে আসছিলেন। কিন্তু ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর চিনিকল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে ইক্ষুখামারে অবৈধভাবে আখ কাটার অজুহাতে সাঁওতালদের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এসময় পুলিশ তিন সাঁওতালকে গুলি করে হত্যা করে। এরপর জমি থেকে সাঁওতাল-বাঙালিদের উচ্ছেদ করতে বসতবাড়ীতে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর, লুটপাট ও ধরপাকড় করে। পাশাপাশি চিনিকল কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ সাঁওতাল-বাঙালিদের হয়রানির উদ্দেশ্যে বেশ কয়েকটি মিথ্যা দায়ের ও উচ্ছেদ কার্যক্রম চালানোর পরেও সাঁওতাল-বাঙালিরা থেমে থাকেনি। সাঁওতাল হত্যার প্রায় পাঁচ বছর অতিবাহিত হলেও এখনো কোন সমাধান করা হয়নি। তারা আবারো সক্রিয়ভাবে আন্দোলন সংগ্রামের পাশিপাশি আলোচিত সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্মের (সাহেবগঞ্জ ইক্ষুখামারে) তাদের দাবীকৃত বাপদাদার (পৈত্রিক) জমিতে বসতবাড়ী নির্মাণ সহ জমিতে চাষাবাদ করে আসছে।
বক্তারা বলেন, হঠাৎ কিছুদিন পূর্বে বেপজা কর্তৃপক্ষ এই জমি পরিদর্শন করেন এবং এই জমিতে ইপিজেড নির্মাণের পায়তারা করছেন। বেপজা কর্তৃপক্ষ কিভাবে এই জমিতে ইপিজেড নির্মাণ করতে চান? সাঁওতাল-বাঙালিদের এই জমি তো শর্ত সাপেক্ষে রিকুইজিশন করা হয়েছিল। সেই শর্ত মোতাবেক জমি ফেরতযোগ্য। তারপরও সাঁওতাল-বাঙালিরা জমি বুঝিয়ে পাওয়ার লক্ষে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিতভাবে জানিয়েছেন। জমি উদ্ধার করতে গিয়ে তিন সাঁওতালকে জীবন দিতে হয়েছে। সর্বোপরি এই জমিতে তিন থেকে চার ফসল চাষাবাদ হয়।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | সাপ্তাহিক দারিয়াপুর

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com